Monday, January 18, 2021

দেড় বছরের মধ্যে পদ্মা সেতু চালু করা সম্ভব হবে

Must Read

লিজকৃত জমি সাব-লিজ দেয়া যাবে না, পরিপত্র সংশোধন | 994224 | কালের কণ্ঠ

"লিজকৃত জমি সাব-লিজ দেয়া যাবে না, কিংবা জমির শ্রেণি/আকার/প্রকার কোনরূপ পরিবর্তন করা যাবে না" মর্মে অনুচ্ছেদ যুক্ত...

RSS Generator. Create your RSS feed Online

Do you want to generate an RSS Feed? Our Free Online Tool provides a really...

শিক্ষা: প্রায় এক বছর শ্রেনীকক্ষের বাইরে থাকায় ছাত্র-ছাত্রীদের জীবনে যে ছন্দপতন হবে

ছবির উৎস,GETTY IMAGES বাংলাদেশে করোনাভাইরাস মহামারি কারণে ২০২০ সালে নিয়মিত শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ রাখার পাশাপাশি অনুষ্ঠিত হয়নি পাবলিক পরীক্ষাগুলো। অনলাইনে...


পদ্মা সেতু করতে গিয়ে মানের বেলায় কোনো ধরনের আপস করা হয়নি। সবকিছুই ছিল স্বচ্ছ। মোট প্রকল্পের ব্যয় ছিল ৩০ হাজার কোটি টাকার কিছু বেশি। এর মধ্যে শুধু সোয়া ছয় কিলোমিটার দীর্ঘ সেতু বানাতে খরচ হচ্ছে ১৬ হাজার কোটি টাকা। নদীশাসনে যাচ্ছে আট হাজার কোটি টাকা। বাকি টাকা খরচ হয়েছে মাওয়া অংশে অ্যাপ্রোচ সড়ক, জাজিরা অংশে অ্যাপ্রোচ সড়ক এবং বিভিন্ন পরিষেবা নির্মাণে। সব হিসাব স্বচ্ছ। তাই এককথায় বলা যায়, পদ্মা সেতুতে কোনো বিচ্যুতি হয়নি।

এই যে ঢাকা শহরে এত পরিবর্তন হচ্ছে, ৩৯ তলা, ৪০ তলা ভবন হচ্ছে, এসব পরিবর্তন হচ্ছে দেশের প্রকৌশলীদের হাত ধরেই। পদ্মা সেতুতে যেসব ভারী যন্ত্রপাতি চীন, সুইজারল্যান্ড, জার্মানিসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে আমদানি করা হয়েছে, সেগুলো তত্ত্বাবধান করেছেন আমাদের প্রকৌশলীরাই। অন্তত ৫০ জন প্রকৌশলী যন্ত্রপাতির মান নিশ্চিত করার কাজ করেছেন। এ ছাড়া সরাসরি পদ্মা সেতুতে কাজ করেছেন আরও ২০ প্রকৌশলী। সব মিলিয়ে ৭০ জন দেশীয় প্রকৌশলী পদ্মা সেতুর সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন। বড় প্রকল্প বাস্তবায়নের অভিজ্ঞতা অর্জন করতে পেরেছেন প্রকৌশলীরা। তবে মূল বিষয় হলো আমাদের নীতিনির্ধারকেরা প্রকৌশলীদের বিশ্বাস করেন? তাঁরা প্রকৌশলীদের দিয়ে বড় বড় কাজ করতে দেবেন? দেবেন না। আমাদের প্রকৌশলীরা বিদেশের মাটিতেও বড় বড় অনেক কাজ করছেন। সেই সক্ষমতা আমাদের আছে। কিন্তু আমাদের সেই সুযোগ দেওয়া হচ্ছে না।

পদ্মা সেতু তৈরি হয়েছে মূলত দেশীয় উপকরণ দিয়ে। সেতু তৈরিতে সবচেয়ে বেশি লাগে দুটি উপকরণ। একটি হলো স্টিল, অন্যটি সিমেন্ট। আমি বলব, আমাদের দেশে যথেষ্ট ভালো মানের সিমেন্ট ও স্টিল তৈরি হয়। শুধু স্টিল আর সিমেন্টই নয়, রড, বালু, পাথরসহ অন্য যেসব উপকরণ পদ্মা সেতুতে ব্যবহৃত হয়েছে, সব উপকরণই ছিল সর্বোচ্চ মানের। যারা এসব উপকরণ সরবরাহ করেছে, তারা সবাই ছিল সতর্ক। তাই পদ্মা সেতুতে নিম্নমানের উপকরণ ব্যবহারের কোনো সুযোগই ছিল না।

এম শামীম জেড বসুনিয়া: ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিকের ইমেরিটাস অধ্যাপক



Source link

- Advertisement -

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisement -

Latest News

লিজকৃত জমি সাব-লিজ দেয়া যাবে না, পরিপত্র সংশোধন | 994224 | কালের কণ্ঠ

"লিজকৃত জমি সাব-লিজ দেয়া যাবে না, কিংবা জমির শ্রেণি/আকার/প্রকার কোনরূপ পরিবর্তন করা যাবে না" মর্মে অনুচ্ছেদ যুক্ত...
- Advertisement -

More Articles Like This

- Advertisement -